রবিবার, ২৩ এপ্রিল, ২০১৭

ইন্টারনেটের মাসিক মূল্য সর্বোচ্চ ১০০ টাকা করার দাবি

ইন্টারনেটের মাসিক মূল্য সর্বোচ্চ ১০০ টাকা করার দাবি জানিয়েছে মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশন।শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে সংগঠনটির নেতারা এই দাবি করেন।

সংগঠনটির সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের মূল্য নির্ধারণ করে দিতে হবে। যার সর্বোচ্চ মাসিক মূল্য হবে ১০০ টাকা। সরকারের ভিশন-২০২১ বাস্তবায়ন করত হলে ইন্টারনেটের মূল্য কমাতে হবে।
মহিউদ্দিন আহমেদ জানান, দেশে থ্রিজি প্রযুক্তি সম্পন্ন হ্যান্ডসেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৭ কোটি ৩০ লাখ। ইন্টারনেট ব্যবহারকারী সংখ্যা ৬ কোটি ৭২ লাখ। এর মধ্যে মুঠোফোন ভিত্তিক ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৬ কোটি ৩১ লাখ। যা মোট ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর ৯৪ শতাংশ।
সংগঠনটির নেতারা বলেন, ২০১৩ সালে দেশের প্রথম থ্রি-জি প্রযুক্তি চালুর মাধ্যমে মুঠোফোন ভিত্তিক ইন্টারনেট চালু হয়। উন্নত বিশ্বে ফাইভজি চালু হলেও আমরা থ্রি-জি প্রযুক্তি আজ অবধি সকলের মাঝে ছড়িয়ে দিতে পারিনি। এজন্য তারা ইন্টারনেটের অতিরিক্ত দাম, সচেতনতার অভাব, দুর্বল নেটওয়ার্ক ব্যবস্থা, অপর্যাপ্ত ফাইবার অপটিক্যালসহ সাইবার নিরাপত্তার পর্যাপ্ত ব্যবস্থাকে দায়ী করছেন।
এ খাতের সকল বিশৃঙ্খল অবস্থা দূর করে একটি জনবান্ধব প্রযুক্তি সেবা খাত তৈরি করার জন্য ইন্টারনেটের মূল্য নির্ধারণ করার জন্য তারা সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।
মানববন্ধনের উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু বক্কর সিদ্দিক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী আমানুল্লাহ মাহফুজ প্রমুখ।


আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিন
 আমাদের গ্রুপে জয়েন্ট করুন


বৃহস্পতিবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৭

লালমোহনে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি নিয়োগে প্রার্থীর তথ্য গোপন

ভোলার লালমোহনে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নবসৃষ্ট দপ্তরি কাম নৈশ প্রহরী পদে নিয়োগের জন্য প্রার্থীরা তথ্য গোপন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরকারি চাকির বিধিমালায় বয়স ৩০ এর মধ্যে রাখতে কেউ কেউ ভোটার আইডি কার্ড গোপন, জন্মসনদ পরিবর্তন, এফিডেভিট করে বয়স কমানো এবং অস্টম শ্রেণির শিক্ষা সনদ নিয়েও জালিয়াতির আশ্রয় নিচ্ছেন। এমন বিভিন্ন অভিযোগে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে অন্তত হাফ ডজন অভিযোগ দায়ের হয়েছে। এসব অভিযোগ তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছেন ইউএনও মো: শামছুল আরিফ।
লালমোহন কালমা ইউনিয়নের পূর্ব চরলক্ষ্মী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রিয়াজ নামে এক প্রার্থী আবেদন করেছে। তার ভোটার আইডি কার্ড অনুযায়ী জন্ম তারিখ ৫ মার্চ ১৯৮৪। বয়স ৩৩ বছরের বেশি। এছাড়া অষ্টম শ্রেণির সনদ নিয়েও জালিয়াতির আশ্রয় নিয়েছে রিয়াজ।
আবেদনপত্রে বালুরচর দালাল বাজার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সনদ দেয়া হলেও ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: কামাল হোসেন জানান, রিয়াজ আদৌ ওই বিদ্যালয়ের ছাত্র ছিল না। সে ভূয়া সনদ দিয়েছে।
লালমোহনে মোট ২৫টি বিদ্যালয়ে এ ধাপে দপ্তরি কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগ দেয়া হচ্ছে। প্রতিটির বিপরীতে একাধিক প্রার্থী আবেদন করেছে। ইতোমধ্যে আবেদন যাছাই বাছাই করা হয়েছে বলে জানা গেছে। আগামী ২৪ এপ্রিল মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
তথ্য গোপন করা প্রসঙ্গে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো: জালাল আহমেদ জানান, ৫-৭টি অভিযোগ পাওয়া গেছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: শামছুল আরিফ জানান, অভিযোগের তদন্তের জন্য দায়ীত্ব দেয়া হয়েছে। আমরা সকল আবেদন বাছাই করে মৌখিক পরীক্ষার জন্য ডাকছি। সেখানে চূড়ান্তের পর কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাকে নিয়োগ দেয়া হবে না।



আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিন
 আমাদের গ্রুপে জয়েন্ট করুন


বুধবার, ১৯ এপ্রিল, ২০১৭

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতের ঘোষণা ; মূর্তি অপসারন না হলে হিন্দুদের উচ্ছেদ

 


বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের সামনে থেকে গ্রীক দেবির মূর্তি অপসারন না করা হলে এদেশের হিন্দুদের শান্তিতে থাকতে দেওয়া হবেনা,তাদেরকে উচ্ছেদ করা হবে। পাশাপাশি প্রতিবেশি হিন্দু প্রধান দেশ ভারতের সাথেও এদেশের ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা যুদ্ধ ঘোষনা কতে পারে বলে ঘোষনা দিয়েছে বাংলাদেশ হেফাজতে ইসলামের ব্রাহ্মণবাড়িয়া শাখা। মূর্তি অপসারন না হলে আরেকটি শাপলা চত্বরের মতো ঘটনা ঘটবে। তারা আরো বলেন, মূর্তি অচিরেই অপসারন না করলে দেশের ধর্মপ্রাণ মানুষ তা ভেঙ্গে চুরমার করে দিবে।

বৃহষ্পতিবার বেলা ১২টায় কাউতলি মোড়ে সৌধ হিরন্ময় চত্তরে এক বিক্ষোভ সমাবেশে তারা এই কথা বলেন। এর আগে বেলা ১১টায় শহরের ট্যাংকের পার থেকে কয়েক হাজার মুসল্লি,মাদ্রাসা ছাত্র ও আলেমদের অংশগ্রহনে এক বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে কাউতলি মোড়ে গিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। সামবেশে হেফাজতের ইসলামের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নেতাকর্মী ছাড়াও বিভিন্ন উপজেলার নেতাকর্মীরা বক্তব্য রাখেন। তখন তারা সরকারের নিন্দা করে বলেন, সরকার বাংলাদেশকে ভারতের অঙ্গরাজ্য বানিয়ে ফেলেছে। প্রতি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে মুর্তি স্থাপন করে সরকার এটাই প্রমান করেছে। যদি অচিরেই এসব বন্ধ না হয় তবে তৌহিদী জনতা সরকার পতনের আন্দোলনে নামবে।




আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিন
 আমাদের গ্রুপে জয়েন্ট করুন


রবিবার, ১৬ এপ্রিল, ২০১৭

নিষেধাজ্ঞা আসছে ২০০ কলেজে একাদশে ভর্তিতে


নিউজ সংগৃহিত
সারাদেশের প্রায় ২০০টি কলেজ ও মাদ্রাসায় একাদশ শ্রেণীতে শিক্ষার্থী ভর্তি করতে পারবে না। এর মধ্যে ৭৯টি কলেজ ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের। দু্একদিনের মধ্যে ভর্তিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করে এসব কলেজের নাম প্রকাশ করবে বোর্ডটি। অন্য বোর্ডগুলোও চিহ্নিত প্রতিষ্ঠানে এবার শিক্ষার্থী ভর্তি করতে দেবে না। এ লক্ষ্যে প্রত্যেক বোর্ডই ঢাকায় কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটির কাছে তালিকা পাঠিয়েছে। আগামী মাসের তৃতীয় সপ্তাহে একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।
এ প্রসঙ্গে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান দৈনিকশিক্ষাডটকমকে বলেন, “মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে আমরা দুই ধরনের প্রতিষ্ঠানে ভর্তি বন্ধ করে দিচ্ছি। এক, যেসব প্রতিষ্ঠান পাবলিক পরীক্ষায় একজনও পাস করাতে পারেনি। দুই. গত দু’বছর যেসব প্রতিষ্ঠানে একজন শিক্ষার্থীও ভর্তির আবেদন করেনি।’
মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, উল্লিখিত প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়ার ব্যাপারে গত নভেম্বরে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বিভিন্ন বোর্ডে চিঠি পাঠানো হয়। পাশাপাশি ২৩ নভেম্বর আলাদা পরিপত্র জারি করা হয়। ১৯৪ কলেজে গত বছর একাদশ শ্রেণীতে কোনো শিক্ষার্থী ভর্তি হয়নি। আর ২৫টি কলেজ-মাদ্রাসা আছে যেগুলোতে গত বছর কোনো শিক্ষার্থী পাস করেনি। এর মধ্যে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে আছে ৯৮টি (৯৫টি ভর্তিশূন্য, ৩টি পাসশূন্য)। যশোর বোর্ডে ৫টি কলেজে শিক্ষার্থী ভর্তি হয়নি এবং ১টি কলেজে পাস করেনি। এভাবে ভর্তি না হওয়া ও পাস না করা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রাজশাহী বোর্ডে ৪২টি ও ৮টি, দিনাজপুর বোর্ডে ২৪টি ও ৮টি, মাদ্রাসা বোর্ডে ৫টি ও ১০টি। চট্টগ্রাম বোর্ডে ৪টি এবং সিলেট ও বরিশাল বোর্ডে ৭টি করে মোট ১৪টি কলেজে শিক্ষার্থী ভর্তি হয়নি। সংশ্লিষ্টরা জানান, গত দুই বছর ধরে একাদশ শ্রেণীতে অনলাইনে ভর্তি কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। এ কারণে কোনো প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী ভর্তি হচ্ছে বা হচ্ছে না, তা ধরা পড়ছে।
এ প্রসঙ্গে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক জিয়াউল হক বলেন, ‘আমাদের বোর্ডের অধীন কলেজগুলোকে বিষয়টি জানিয়েছি। আর এসব প্রতিষ্ঠানে যাতে কেউ ভর্তি হতে না পারে, সেজন্য কেন্দ্রীয় সার্ভারে পাঠানো তালিকায় নাম রাখা হয়নি। তবে এ ব্যাপারে কোনো পাবলিক নোটিশ দিইনি।’ ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন, মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশনা পাওয়ার পর আমরা ভর্তি না হওয়া ও পাস করাতে ব্যর্থ ৯৮টি কলেজকে আলাদা শোকজ করি। এর মধ্যে ১৯টি কলেজের জবাব সন্তোষজনক পাওয়া গেছে। বাকি ৭৯টি কলেজে ভর্তি নিষেধাজ্ঞা জারি করে আজ-কালের মধ্যে বোর্ডের ওয়েবসাইটে এগুলোর নাম প্রকাশ করা হবে।
ঢাকা বোর্ডের শোকজ পাওয়া ৯৩টি কলেজের নাম জানা গেছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে- বালুঘাট হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ, নাখালপাড়া হোসেন আলী হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ, হার্ভার্ড ইন্টারন্যাশনাল কলেজ, আইডিয়াল ল্যাবরেটরি কলেজ, হাক্কানী মিশন মহাবিদ্যালয়, কলেজ ফর অ্যাডভান্সড স্টাডিজ, নিউরাল কলেজ, ধানমণ্ডি কলেজ, বাসাবো উচ্চমাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, ঢাকা এসএবিএম কলেজ, নর্থসাউথ কলেজ, উত্তরা সাইন্স কলেজ, মেট্রোপলিটন মডেল কলেজ, লিডস কলেজ, চেতনা মডেল কলেজ, উইবট কলেজ, জাস্ট ইন্টারন্যাশনাল কলেজ, হ্যারিটেজ ইন্টারন্যাশনাল কলেজ, ইউরোপিয়ান কলেজ, ল্যান্ডমার্ক কলেজ, ইউনিভার্স কলেজ, লাইটহাউস কলেজ, আইকন কলেজ, ই. হক কলেজ, ইউনাইটেড গ্লোবাল কলেজ, সভরিন কলেজ, প্রিমিয়ার কলেজ, বিমস কলেজ প্রভৃতি।

আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিন
 আমাদের গ্রুপে জয়েন্ট করুন


শনিবার, ১৫ এপ্রিল, ২০১৭

আজ ফাজিল পরীক্ষার ফল প্রকাশ

ফাজিল পরীক্ষার ফল প্রকাশ ১৬ এপ্রিল

ইবি প্রতিনিধি | এপ্রিল ১৫, ২০১৭ - ৭:২৯ অপরাহ্ণ
dainikshiksha
- See more at: http://www.dainikshiksha.com/%E0%A6%AB%E0%A6%BE%E0%A6%9C%E0%A6%BF%E0%A6%B2-%E0%A6%AA%E0%A6%B0%E0%A7%80%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%B7%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%AB%E0%A6%B2-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%B6/83000/#sthash.aqakMac3.3WNibf0I.dpuf
ইসলমী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে দেশের ফাজিল মাদ্রাসার ফল আজ ১৬ এপ্রিল প্রকাশ করা হবে। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ভারপ্রাপ্ত) এ কে আজাদ লাভলু এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিস সূত্র জানায়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন দেশের মাদ্রাসা ফাজিলের (২০১২-১৩, ২০১৩-১৪ ও ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষ) ১ম, ২য় ও ৩য় বর্ষের ফল আজ রবিবার বেলা ১২টায় প্রকাশ করা হবে। বিশ্ববিদ্যালয় ওয়েব সাইটে  (www.iu.ac.bd) রেজাল্ট পাওয়া যাবে।


আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিন
 আমাদের গ্রুপে জয়েন্ট করুন


রবিবার, ৯ এপ্রিল, ২০১৭

চালকের আসনে নারী, নতুন অধ্যায়ে ডাকের গাড়ি




আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিন
 আমাদের গ্রুপে জয়েন্ট করুন


সোমবার, ১৬ জানুয়ারী, ২০১৭

Open Workbook in Excel 2010

Let us see how to open workbook from excel in the below mentioned steps.

Step 1 − Click the File Menu as shown below. You can see the Open optionin File Menu.

There are two more columns Recent workbooks and Recent places, where you can see the recently opened workbooks and the recent places from where workbooks are opened.

Step 2 − Clicking the Open Option will open the browse dialog as shown below. Browse the directory and find the file you need to open.

Step 3 − Once you select the workbook your workbook will be opened as below −